বাংলাদেশ শিশু একাডেমি মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

গ্রন্থাগার কার্যক্রম

গ্রন্থাগার বিভাগের নিয়মিত কার্যক্রম:


গ্রন্থাগার বিভাগের সংগ্রহসমূহ প্রক্রিয়াকরণের (এক্সসেশন, ক্লাসিফিকেশন ক্যাটালগিং, বুক লেভেলিং, সেল্িফং ইত্যাদি) নিয়মিত কার্যক্রম চলমান রয়েছে। 
    
 গ্রন্থাগারে সংগ্রহের জন্য পুস্তক ক্রয় :


উদ্দেশ্যে: বাংলাদেশ শিশু একাডেমির কেন্দ্রীয় কার্যালয়, ৬৪টি জেলা ও ০৬টি উপজেলা গ্রন্থাগারসমূহের  সংগ্রহকে সমৃদ্ধ করা।


উপকারভোগীর সংখ্যা: বছরে গড়ে প্রায় পনর হাজার শিশু-কিশোর, লেখক, গবেষক, সরকারি উচ্চ পর্যায়ের  কর্মকর্তা,  বিভিন্ন আন্তর্জাতিক দপ্তর সংস্থার প্রতিনিধি, বাংলাদেশে অবস্থিত বিভিন্ন দূতাবাস সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ ও বিভিন্ন বিদেশী পরিদর্শক গ্রন্থাগার পরিদর্শন ও রেফারেন্স সেবা গ্রহন করে থাকে।


কর্মসূচির বিবরণ: বাংলাদেশ শিশু একাডেমির কেন্দ্রীয় কার্যালয়, জেলা ও উপজেলা গ্রন্থাগারসমূহে সংগ্রহের জন্য বইয়ের তালিকা প্রস্তুত করে বই ক্রয় করা হয় এবং জেলা ও উপজেলা শাখা গ্রন্থাগারে সংরক্ষণের জন্য   প্রেরণ করা হয়। ২০১৯-২০ অর্থবছরে ৩৬টি শিরোনামের সর্বমোট ২৫৪ কপি বই ক্রয় করে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে শেখ রাসেল শিশু গ্রন্থাগারে সংরক্ষণ করা হয়েছে।


বাস্তবায়ন এলাকা: বাংলাদেশ শিশু একাডেমির কেন্দ্রীয় কার্যালয়, ৬৪টি জেলা ও ০৬টি উপজেলা।

 

গ্রন্থাগারভিত্তিক শিক্ষামূলক কার্যক্রম ও প্রতিযোগিতা :


উদ্দেশ্যে: জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গঠন এবং শিশু-কিশোরদের মধ্যে পাঠাভ্যাস বৃদ্ধি ও গ্রন্থাগারের প্রতি আগ্রহী করে গড়ে তোলা।


উপকারভোগীর সংখ্যা: বছরে প্রায় পাঁচ হাজার শিশু-কিশোর সরাসরি এই কার্যক্রমের সাথে সম্পৃক্ত হয়।


কর্মসূচির বিবরণ: বই পাঠের পাশাপাশি বিভিন্ন শিক্ষামূলক কার্যক্রম ও প্রতিযোগিতা যেমন মুক্ত আলোচনা, কুইজ, বিতর্ক, বক্তৃতা, সৃজনশীল রচনা, পাঠচক্র, সাধারন জ্ঞান ইত্যাদি ছাড়াও সুবিধাবঞ্চিত ও বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশু-কিশোরদের জন্য বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বিশ^ শিশু দিবস-২০১৯ উপলক্ষ্যে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিন াশেখ রাসেল শিশু গ্রন্থাগারে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুকে জানো বাংলাদেশকে জানো কর্ণার উদ্বোধন ও পরিদর্শন করেন। এছাড়া ০৫ই ফেব্রুয়ারি ২০২০ ইং তারিখে জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস উপলক্ষ্যে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের নিয়ে মুক্ত আলোচনা, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জীবনী নিয়ে নির্মিত ডকুমেন্টারি প্রদর্শন, কুইজ, সাধারন জ্ঞান ইত্যাদি কর্মসূচি পালন করা হয়।করোনা মহামারী জনিত কারণে গ্রন্থাগার বিভাগের পাঠক সেবা আপাতত বন্ধ আছে, কিন্তু গৃহবন্দী শিক্ষার্থীদের বুদ্ধিবৃত্তিক বিষয়ে সম্পৃক্ততার লক্ষ্যে অনলাইনভিত্তিক কুইজ অনুষ্ঠান চলমান রয়েছে। 


বাস্তবায়ন এলাকা: বাংলাদেশ শিশু একাডেমির কেন্দ্রীয় কার্যালয়, ৬৪টি জেলা ও ০৬টি উপজেলা।

 


Share with :

Facebook Facebook