বাংলাদেশ শিশু একাডেমি মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৬ অক্টোবর ২০২১

"কন্যা শিশুরা বিকশিত হলে দেশ সমৃদ্ধ হবে " মহিলা ও শিশু বিষয়ক সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম


প্রকাশন তারিখ : 2021-10-05

আজ ঢাকায় বাংলাদেশ শিশু একাডেমি মিলনায়তনে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় কন্যা শিশু অ্যাডভোকেসি ফোরামের আয়োজনে জাতীয় কন্যা শিশু দিবস ২০২১ উপলক্ষে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। এ বছর “আমরা কন্যা শিশু- প্রযুক্তিতে সমৃদ্ধ হবো, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়বো" প্রতিপাদ্য সামনে রেখে উদযাপিত হচ্ছে এই দিবস। এর পূর্বে সকালে শিশু একাডেমি চত্বরে বেলুন উড়িয়ে দিবসের উদ্বোধন করেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম।

 

জাতীয় কন্যা শিশু দিবসের অনুষ্ঠানে বাল্য বিয়েকে “না” ও নিজেদের বাল্য বিয়ে প্রতিরোধের কথা তুলে ধরলেন সাহসী কন্যা শিশু এবং কিশোরীরা। ঢাকার গেন্ডারিয়ার আমেনা আক্তার বৃষ্টিকে অল্প বয়সে তার পরিবার বিয়ে দিতে উদ্যোগী হলে নিজেই সে বিয়ে বন্ধ করে দেয়। শুধু নিজের বাল্য বিয়ে ঠেকিয়ে থেমে থাকেনি, বৃষ্টি তাঁর এলাকায় এপর্যন্ত বিশটি বাল্য বিয়ে বন্ধ করেছে। কন্যা শিশুর উন্নয়ন ও সুরক্ষায় কাজ করা গুড নেইবার বাংলাদেশের জেরিন আক্তার ও অপরাজেয় বাংলার মনোয়ারা আক্তার তানহাও নিজেদের বাল্য বিয়ে প্রতিরোধ করে সামনে এগিয়ে যাওয়ার এমন উদাহরণ সৃষ্টিকারী গল্প তুলে ধরে।

জাতীয় কন্যা শিশু অ্যাডভোকেসি ফোরামের সহ-সভাপতি রাবেয়া বেগমের সভাপতিত্বে আজকের জাতীয় কন্যা শিশু দিবস ২০২১ উদযাপন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম,মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক রাম চন্দ্র দাস এবং বাংলাদেশ শিশু একাডেমির চেয়ারম্যান লাকী ইনাম।

 

অনুষ্ঠানে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম বলেন, ‘কন্যা শিশুরা বিকশিত হলে দেশ সমৃদ্ধ হবে। কন্যা শিশুর পড়াশোনা, সুরক্ষা ও বিকাশের ক্ষেত্রে রাষ্ট্র, সমাজ ও পরিবার সকলের দায়িত্ব রয়েছে। দেশে প্রাথমিক শিক্ষায় মেয়েরা ছেলেদের চেয়ে এগিয়ে আছে। প্রতিটি কন্যা শিশুরই রয়েছে অমিত সম্ভাবনা। তারা সমান সুযোগ পেলে অধিকতর দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করতে পারে’।

 

সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম আরো বলেন, কন্যা শিশু ও ছেলে শিশু আলাদা কিছু না। তারা সবাই শিশু। কন্যা শিশুর প্রতি বৈষম্য শুরু হয় পরিবার থেকে। এই বৈষম্য আমাদেরই রোধ করতে হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কন্যা শিশুর শিক্ষা ও বিকাশে বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছেন। যার ফলে বাংলাদেশে নারীর ক্ষমতায়ন বিশ্বে অন্যান্য উদাহরণ সৃষ্টি করেছে।

 

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিল বাংলাদেশ শিশু একাডেমির মহাপরিচালক জ্যোতি লাল কুরী, অতিরিক্ত সচিব মো.মুহিবুজ্জামান ও নাছিমা আক্তার জলিসহ মন্ত্রণালয় ও দপ্তর সংস্থার বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ এবং জাতীয় কন্যা শিশু এ্যাডভোকেসি ফোরামের বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিবৃন্দ। আলোচনা পর্ব শেষে ছিল শিশুদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

 

01_%283%29%5B1%5D

06_%281%29%5B1%5D


Share with :

Facebook Facebook